• রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ১১:০৩ অপরাহ্ন

৩০২ কেজি হোরোইন পাচার, বাধনের জামিন বাতিল

অনলাইন ডেস্ক / ৩৩৪ Time View
Update : সোমবার, ১ নভেম্বর, ২০২১

হেরোইন ও কোকেন পাচারের অভিযোগে দায়ের মামলায় মোহাম্মদ বাধন শেখ পারভেজকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন বাতিল করেছেন আপিল বিভাগ।

সোমবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ বেঞ্চ এ আদেশ দেন। মোহাম্মদ বাধন শেখ পারভেজ শ্রীলঙ্কায় ৩০২ কেজি হেরোইন এবং ৫ কেজি কোকেন পাচারের ঘটনায় জড়িত বলে মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে। ২০১৯ সালের ৫ জানুয়ারি উত্তরার এক বাড়ি থেকে ওই মাদক চোরাচালানি দলের অন্যতম সদস্য চয়েজ রহমানকে গ্রেফতার করে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর। এরপর ৩০২ কেজি হেরোইন এবং ৫ কেজি কোকেন পাচারের অভিযোগে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় ২০১৯ সালের ১২ জানুয়ারি মামলা করে সিআইডি। পরে চয়েজ রহমানের তথ্যের ভিত্তিতে বিমানবন্দরের কাছে কাউলা এলাকা থেকে পারভেজসহ কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়। এই মামলায় হাইকোর্ট চলতি বছরের ২৩ ফেব্রুয়ারি তাকে জামিন দেন। হাইকোর্টের এ আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ আপিল বিভাগে আবেদন করেন। পরে জুন মাসে তার জামিন স্থগিত করা হয়। ওই আবেদনের ধারাবাহিকতায় মামলাটি শুনানির জন্য আসে। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ বলেন, চুক্তি মোতাবেক শ্রীলঙ্কা থেকে অ্যাটর্নি জেনারেল অফিসের কাছে গোপনীয় নথি পাঠায়। সেটা পর্যালোচনা করে মূল আসামি চয়েজ রহমানেরও জামিন বাতিল হয়েছিল। বাধন শেখ পারভেজের জামিনও একইভাবে বাতিল করা হলো। হাইকোর্ট যে জামিন আদেশ দিয়েছিলেন, সেটা পুরোপুরি বাতিল করে দিলেন আপিল বিভাগ। কলম্বোর কাছে দেহিওয়ালা এলাকার এক বাসায় অভিযান চালিয়ে ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর ২৭২ কেজি হেরোইন ও ৫ কেজি কোকেন উদ্ধার করে শ্রীলঙ্কার পুলিশ, নারকোটিক ব্যুরো ও স্পেশাল টাস্ক ফোর্স। ওই বাড়ি থেকে মোহাম্মদ জামালউদ্দিন ও দেওয়ান রফিউল ইসলাম নামের দুই বাংলাদেশিকে গ্রেফতার করা হয়। এর দুই সপ্তাহ আগে একই এলাকা থেকে ৩২ কেজি হেরোইনসহ সূর্যমণি নামে আরেক বাংলাদেশি নারীকে গ্রেফতার করে শ্রীলঙ্কার পুলিশ। ১৫ দিনের মধ্যে এই বিপুল পরিমাণ মাদকসহ তিন বাংলাদেশির ধরা পড়ার ঘটনা আলোড়ন সৃষ্টি করে, তদন্তের কাজে শ্রীলঙ্কার পক্ষ থেকে বাংলাদেশ সরকারের সহায়তা চাওয়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় উত্তরা থেকে গ্রেফতার করা হয় চয়েজ রহমানকে। তারপর বিমানবন্দরের কাছে কাউলা এলাকায় অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করা হয় ফাতেমা ইমাম তানিয়া (২৬), আফসানা মিমি (২৩), সালমা সুলতানা (২৬),মো. বাধন শেখ পারভেজ (২৮) ও রুহুল আমিন ওরফে সায়মনকে (২৯)।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

ফেসবুকে আমরা