• বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:৪৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম
সুশৃঙ্খল নিয়ম-নীতির নামাজ অন্যায় কাজ থেকে বিরত রাখে মানুষের কৃতকর্ম ও গুনাহের ফল হিসেবে আখ্যা দেয়- বৃষ্টি চেয়ে নামাজ পড়ার নিয়ম বাশফুল থেকে চালের উৎপাদন সম্ভব- বাশ চাল পুষ্টিগুণ অনেক সমীচীন নয় দুনিয়ার গিবত পরকালের আপদ সারাদেশে কমছেই না গরমের তীব্রতা, ফের বাড়ল ‘হিট অ্যালার্ট’–এর মেয়াদ সালমানের বাড়িতে গুলি হামলার ঘটনায় দ্বিতীয় অস্ত্র উদ্ধার গত মঙ্গলবার সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় শিল্পী সমিতির দুঃখ প্রকাশ শেষ লিভারপুলের শিরোপা স্বপ্ন এভারটনের মাঠে হেরে প্রায়  এবার চেন্নাইয়ের মাঠেও দুশ্চিন্তা বাড়াচ্ছেন মুস্তাফিজও আমেরিকাকে বেকায়দায় ইরানের হাতে নতুন অস্ত্র, রেহাই পাবে না আমেরিকার ‘অদৃশ্য’ যুদ্ধবিমানও!

সড়কে প্রাণহানির ঘটনায় দোষীদের শাস্তি হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক / ৩৩১ Time View
Update : বুধবার, ১ ডিসেম্বর, ২০২১

সড়কে প্রাণহানির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যারা দোষী অবশ্যই তাদের শাস্তি দেওয়া হচ্ছে। তাদের খুঁজে বের করা হয়েছে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী অনেক সতর্ক এ ব্যাপারে।

সব জায়গায় ভিডিও ফুটেজ আছে, অপরাধ যে করবে তাকে ধরা ফেলা কঠিন হচ্ছে না। ভবিষ্যতে যারা গাড়ি ভাঙচুর করবে, আগুন দেবে তাদেরও খুঁজে বের করা হবে। তাদেরও শাস্তি দেওয়া হবে আর ওই গাড়িতে যদি কেউ মারা যায় বা আগুনে পোড়ে তার জন্যও কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে। আমাদের দেশে এখন যে উন্নয়ন আমরা করে যাচ্ছি, সেটা ধরে রাখতে হবে এবং বাংলাদেশের মানুষকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। আজকের শিশুরা সেভাবে নিজেদের গড়ে তুলবে আমি সেটাই প্রত্যাশা করি। বুধবার সকালে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী ধানমন্ডিতে নির্মাণাধীন জয়িতা টাওয়ারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও বাংলাদেশ শিশু একাডেমি প্রাঙ্গণে নির্মিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালের উদ্বোধন ঘোষণা করেন। সড়ক দুর্ঘটনায় কেউ নিহত হলে আন্দোলনের নামে ভাঙচুর না করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটা মানুষ মারা গেল, আর ১৫টা গাড়িতে আগুন দিলেন, এতে যারা আহত বা নিহত হলেন, ক্ষতিগ্রস্ত হলেন সেই দায়িত্বটা কারা নেবে। তাহলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে তো তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিতে হবে। কেউ আইন নিজের হাতে তুলে নেবেন না। সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়িচাপায় দু’জন নিহতের ঘটনার কারণ খুঁজে বের করা হবে উল্লেখ করে সরকারপ্রধান বলেন, ছাত্র মারা গেছে এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। আমি এই রহস্য বুঝলাম না, দক্ষিণে মারা গেল এরপরের দিন উত্তরে মারা গেল কেন! এর কারণটা কী? এই কারণটা এবং এজন্য কারা দায়ী খুঁজে বের করতে হবে। যখন ময়লার গাড়ি যাচ্ছিল তখন তার সামনে দিয়ে কেউ হেঁটে যাবে কেন, সেটাও দেখতে হবে। গাড়ি যে চালাচ্ছিল, এই গাড়ি চালানোর মতো দক্ষতা তার আছে কিনা সেটাও বিবেচনা করতে হবে। উভয় দিকে দায়িত্বশীলতা কার কতটুকু আছে সেটা আমাদের দেখতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আরেকটা কথা সবার জন্য বলতে চাই—রাস্তাঘাটে চলার সময় সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। ট্রাফিক আইন মেনে চলতে হবে। যেখান-সেখান থেকে রাস্তা পার হতে গেলে দুর্ঘটনা হবেই। একটা চলমান গাড়ি চট করে ব্রেক করতে পারে না, ব্রেক কষতে সময় লাগে। রাস্তা পারাপারের জায়গা নির্দিষ্ট করা আছে। হঠাৎ করে দৌড় দেবে তারপর অ্যাকসিডেন্ট হবে আর অ্যাকসিডেন্ট হলেই রাস্তায় লোক নেমে গাড়ি ভাঙা, গাড়িতে আগুন দেওয়া-পোড়ানো এটা কী ধরনের কথা! শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, এখন পড়াশোনা করতে হবে। যার যার স্কুলে ফিরে যেতে হবে। মনে রাখতে হবে করোনাভাইরাস একেবারে শেষ হয়ে যায়নি। আমরা ভ্যাকসিন দিচ্ছি। নতুন আরেকটা ওয়েভ আসছে। যে কোনো সময় এটা যদি বিস্তার লাভ করে তাহলে আবার স্কুল সব বন্ধ হয়ে যাবে। কাজে যেখানে সময় পাওয়া যাচ্ছে, সবাইকে যার যার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ফিরে গিয়ে শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

ফেসবুকে আমরা