• বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৫:২৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
একুশের প্রথম প্রহরে ফুলপুরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পন” কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতিরাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নবীনগরে পরান কম্পিউটার ইনস্টিটিউটের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত। পূর্বধলায় জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা পদক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত সাংসদ খাদিজাতুল আনোয়ার সনির সংসদ সদস্য পদ বাতিল চেয়ে রীট! আবারও বিয়ের গুঞ্জন, নিশ্চুপ ফারাজ! ফুলপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত ছাগলনাইয়ায় খামারি হত্যা: গ্রেপ্তার ২ ১৯৬৯ এর গণঅভ্যুত্থানে নিহত সেনবাগের ৪ শহীদের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি আজো মেলেনি চট্টগ্রামে ৩১তম আন্তর্জাতিক বাণিজ্য( CITF)এর মেলার উদ্বোধন

শুল্ক ফাঁকির মামলায় নতুন করে কারাগারে যেতে হবে না -এমপি হারুনকে

অনলাইন ডেস্ক / ৩২৬ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২১

শুল্ক ফাঁকির মামলায় নতুন করে কারাগারে যেতে হবে না বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য হারুন উর রশিদকে। শুল্কমুক্ত গাড়ি আমদানি সুবিধা নিয়ে পরবর্তীতে তা বিক্রি করে শুল্ক ফাঁকির অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলায় বিএনপি’র এমপি হারুন অর রশীদকে নিম্ন আদালতের দেয়া পাঁচ বছরের সাজা বহাল নেই। বৃহস্পতিবার দুপুরে এমপি হারুন এ তথ্য জানিয়েছেন।

এমপি হারুন বলেন, বৃহস্পতিবার বিচারপতি মোঃ সেলিমের একক হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এছাড়া আদালত মামলার অপর দুই আসামি ব্যবসায়ী এনায়েতুর রহমান ও গাড়ি ব্যবসায়ী ইশতিয়াক সাদেকের সাজাও বহাল রেখেছেন। তাদেরও নতুন করে আর জেলে যেতে হবে না। এমপি হারুন বলেন, নিম্ম আদালতে আমাদের যে পাঁচ বছরের সাজা ও ৫০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছিল তা বহাল না রেখে উচ্চ আদালত শুধুমাত্র আমরা যে কয়দিন কারাগারে ছিলাম তা বহাল রেখেছেন। তাই আমাদের নতুন করে জেলে যেতে হবে না এবং কোনো জরিমানা দিতে হবে না। তবে যে সময়টা সাজা বহাল রাখা হয়েছে ,তার বিরুদ্ধে আমি আবারো আপিল করবো। উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ২১ অক্টোবর এমপি হারুন অর রশিদ এমপিকে পাঁচ বছরের দণ্ড দিয়ে কারাগারে পাঠান আদালত। পাশাপাশি তাকে ৫০ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ছয় মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়। ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলম ওই রায় দেন। পরে ঢাকার বিশেষ আদালতের দেয়া রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করেন এমপি হারুন। মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, ২০০৭ সালের ১৭ মার্চ সংসদ সদস্য থাকাবস্থায় শুল্ক মুক্ত গাড়ি এনে তা বিক্রির ঘটনায় হারুন অর রশিদসহ তিনজনের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় মামলা হয়। মামলার বাদি পুলিশের উপ-পরিদর্শক ইউনুস আলী। পরে মামলাটি তদন্ত করে হারুনসহ তিনজনের বিরুদ্ধে ওই বছরের ১৮ জুলাই আদালতে চার্জশিট দেন দুদকের সহকারী পরিচালক মোনায়েম হোসেন। অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে হারুনসহ তিনজনের বিরুদ্ধে ২০০৭ সালের ২০ আগস্ট বিচার শুরু করেন আদালত।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

ফেসবুকে আমরা